বাড়িতে শিবলিঙ্গ আছে আপনার? তাহলে অবশ্যই পড়ুন, এড়িয়ে যাবেন না,

স্ক্রল করে একদম নীচে চলে যান, তারপর এটা পড়ার পর একদম শেষের নিউজটাও পড়ুন, অবাক হবেন দেখলে

শিব লিঙ্গের পুজো তো আমরা সবাই করি। প্রায় প্রতিটা বাড়িতেই শিবলিঙ্গ থাকে কমবেশি। কিন্তু এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে নাকি শিবলিঙ্গ বা শিবের মূর্তি রাখা উচিত নয়, কারণ ঠিক ঠিক নিয়ম মেনে শিবের পুজো না করতে পারলে অনেক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। সুখের জায়গা নেয় দুঃখ। কিন্তু এই ধারণা কি আদৌ বাস্তব সম্মত? বাস্তুশাস্ত্র কি বলে দেখি আমরা

শাস্ত্র মতে ভগবান শিবের মূর্তি বাড়িতে রাখা যেতেই পারে কিন্তু ভুলেও শিবলিঙ্গ নয়। কারণ শিবলিঙ্গের পুজোয় এমন কিছু নিয়ম থাকে যেগুলো না মেনে চললে প্রভুত ক্ষতি হতে পারে, আপনার এবং আপনার পরিবারের। তাই বাড়িতে শিবের মূর্তি রাখুন কিন্তু ভুলেও শিবলিঙ্গ নয়। বেশ কিছু নিয়ম আছে শিবলিঙ্গ পুজো করার সেগুলো না মেনে চললে সমুহ বিপদের আশঙ্কা থেকে যায়। তাই প্রতিবার ঠিক ঠিক নিয়ম মেনে শিবলিঙ্গ পুজো হচ্ছে কিনা সেটা দেখা দরকার। নয়তো বাড়িতে শিবলিঙ্গ রাখা ই উচিত নয়। সেক্ষেত্রে পরিবারের মধ্যে রোগ ব্যাধির প্রকোপ বৃদ্ধি পেতে পারে, অর্থনৈতিক সমস্যা ও দেখা যেতে পারে। তো বাড়িতে আপনি শিব ঠাকুরের মূর্তি বা ছবি রাখতে পারেন, সেক্ষেত্রে এত নিয়ম মানতে হয় না, তবে সেক্ষেত্রেও কিছু নিয়ম তো অবশ্যই মানতে হয়। তাই একান্তই যদি শিবের পুজো করতে হয় তাহলে কী কী বিষয় মেনে চলতে হবে সে বিষয়ে জেন্ব নেওয়া জরুরি। তো আসুন নীচে আমরা সেই বিষয়েই কিছু জেনে নিই এই প্রবন্ধের মাধ্যমে।

১. কোথায় রাখবেন শিবের ছবি বা মূর্তি: শাস্ত্র মতে শিব ঠাকুরের মূর্তি সবসময় বাড়ির উত্তর পূর্ব দিকে মুখ করে রাখতে হয়। এতে পরিবারের উপর দেবাদিদেব এর করুণা বিকশিত হয়। ফলে খারাপ কিছুর আশঙ্কা থেকে মুক্তি পেতে পারেন এবং অর্থনৈতিক উন্নতি হওয়ার সুযোগ থাকে। আর ঠাকুরের ছবি বা মূর্তি কখনো মাটিতে রাখা চলবে না। যদি একান্তই রাখতে হয়, তাহলে ভালো করে পরিষ্কার করে সেখানে কোন সাদা কাপড় বিছিয়ে রাখতে হবে।

২. ধ্যানমগ্ন শিব: শাস্ত্রানুযায়ী বাড়িতে শিবের ধ্যানমগ্ন মূর্তি বা ছবি রাখলে গৃহস্থের প্রভুত উপকার হয়। পরিবারের প্রতিটি সদস্যের মন শান্ত হয়, রাগ দূরে থাকে এবং পরিবারের সবাই মিলেমিশে থাকে। প্রসঙ্গত ভুলেও বাড়িতে নটরাজের মূর্তি রাখবেন না যেন। কারণ শাস্ত্র মতে মহাদেবের এমন মূর্তি রাখলে খারাপ কিছু ঘটে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

৩. ছবির সংখ্যা: আপনি কি বাড়িতে একাধিক মহাদেব এর ছবি রেখেছেন? তাহলে কিন্তু ভুল করছেন, বাড়িতে একটিই শিবের ছবি রাখুন আর তার ভালো করে পুজো করুন। একাধিক ছবি রাখলেই যে বেশি আশির্বাদ পাবে এমন কোন ব্যাপার নেই।

৪. কীভাবে করবেন পুজো?:
প্রতিদিন সকাল এবং বিকালবেলা স্নান সেরে ভগবান শিবের পুজো করতে হবে। এই সময় ধূপ-ধুনো জ্বালিয়ে “ওম নমঃ শিবায়”, এই মন্ত্রটি জপ করতে হবে।সপ্তাহে একদিন দুধ দিয়ে স্নান করাতে হবে। প্রসঙ্গত, ভগবান শিবের পুজো শুরুর আগে মনে করে গণেশ ঠাকুরের পুজো করতে ভুলবেন না।
৫, শিবলিঙ্গতে অবশ্যই প্রতিদিন ঘি মাখিয়ে পূজো দিন, কারন বাবা মহাদেব ঘি ভক্ত, এবং প্রতি সোমবার বাবার বারে উপোষ করে অবশ্যই বাবার মাথায় দুধ গঙ্গা দিন, এতে বাবা আপনার ওপর কৃপা করবেন।

৬, বাবাকে ভুলেও রাগাবেন না, তাই ভুলেও বাড়িতে শিবলিঙ্গ 2টো রাখবেন না, মাত্র একটি শিবলিঙ্গ দিয়েই পূজো করবেন, তবে ভক্তিভরে, পূজো যেনো হয় ভক্তি সহকারে।

৭, বাড়িতে ভুলেও সাদা শিবলিঙ্গ পূজো করবেন না, কারন সাদা শিবলিঙ্গ মহিলাদের স্পর্শ করা নিশেধ।তাই ভুলেও সাদা শিবলিঙ্গ নয়।

৮, বাবার মাথায় ও নীচে সবসময় 24 ঘন্টা বেলপাতা দিয়ে রাখবেন অবশ্যই, কারন বাবা সন্তুষ্ট বেলপাতাতেই।কিন্তু আসল জিনিসই হলো ভক্তি, ভক্তি ছাড়া কিছুই হবেনা।

ধন্যবাদ সকলকে পড়ার জন্য, বাবার কল্যাণে আপনার ভালো কিছু ঘটবেই, সবাইকে জানিয়ে দিতে ফেসবুক, হোয়াটসআ্যাপ সমস্ত জায়গায় শেয়ার করবেন।

নীচের নিউজটা ক্লিক করে পড়ুন একবার, অবাক হয়ে যাবেন।

এই নিয়মগুলি মেনে যদি দেবাদিদেবের আরাধনা করতে পারেন, তাহলে আপনার জীবনে আর পরিবারে সুখ শান্তির অভাব হবে না।

Updated: November 14, 2018 — 10:00 pm